জুমঘর সাম্প্রতিক পার্বত্য চট্টগ্রাম জনপ্রতিরোধ সোশ্যাল মিডিয়া ব্লগ বিষয় ভিত্তিক আর্কাইভ chtbd.org মাল্টিমিডিয়া জুম্ম সংস্কৃতি





একটি নতুন কবিতা লেখক- ধীমান ওয়াংঝা



বন্ধুগণ,

অনেকদিন হয়ে গেলো, কোনো কবিতা পোষ্ট করা হয়নি। দেশে এবং সাড়া বিশ্বজুড়ে, পাহাড়ে ও সমতলে গত ক'দিনে যেসব নৃশংসতা ও হত্যাকাণ্ড ঘটে চলেছে, তাতে হৃদয়-মন খুবই অশান্ত, অসহায়, হতাশাক্লিষ্ট, ব্যথিত হয়ে আছে। তাই একটু প্রশান্তির খোঁজে কবিতার আশ্রয় নেওয়া। আজ এক রিপোর্টার বন্ধু দেখা করতে এলে তাঁর মুখে শুনলাম, রোহিঙ্গারা নাকি তিন পার্বত্য জেলায় নির্বিঘ্নে অনুপ্রবেশ করছে এবং সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দা/ভোটার হয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে পাহাড়ি নেতৃবৃন্দ যতোসব নন-ইস্যু নিয়ে নিজেদের মধ্যে ভ্রাতৃঘাতী সংঘাতে লিপ্ত হয়ে আছেন। তাহলে প্রশ্ন, আমরা কি এভাবেই নিঃশেষ হয়ে যাবো? অথচ দেখুন, আমরা যদি চিন্তায়-কর্মে-মননে একটু উদার, উৎকৃষ্ট হতে পারি তাহলে এসব মৌলিক সমস্যাকে কিছুটা হলেও প্রশমিত, প্রতিরোধ করতে পারি। তার জন্য প্রয়োজন ঐক্য, সংহতি এবং আভ্যন্তরীণ যুদ্ধ পরিস্থিতির অবসান। বন্ধুগণ, প্লিজ একটু ভাবুন এবং ঐক্য প্রতিষ্ঠায় নিজেদের অবদান রাখুন। চলমান দুর্বিষহ বাস্তবতায় আপন অন্তরাত্মার প্রশান্তির সন্ধানে এবং জুম্ম জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠার প্রত্যয়ে আমার এই কবিতাটি আপনাদের সকাশে নৈবেদ্যরূপে নিবেদন করলাম। আশা করি, আপনারাও সবাই জাতির বর্তমান অনৈক্য ও চলমান সংঘাতের গুরুতর সমস্যা সমাধানে নিজেদের মতো করে ভাববেন, সময় দেবেন এবং এগিয়ে আসবেন। কবিতাটি নিম্নরূপঃ

যুদ্ধ ও শান্তি

বহুদিন পরে আমায় তুমি প্রশান্ত জুমের হীমছায়া হতে
টেনে নিলে প্রখর রোদ্দুরে
খুনের কথা বলে জ্বালিয়ে দিলে
যতো সুপ্ত রক্তকণা, হীমশীতল শিরা ও ধমণী।
আমি আজ যুদ্ধে রাজি -
এসো চুপিসারে ঘাতকের মতো, ইচ্ছে হলে।

জানি, অনেক ভুলচুক আমারও হয়ে গেছে যুদ্ধের ময়দানে
তাই রাজনীতির বালখিল্য সব দিকপাল পৃথিবীময় খেলছে আজ
যতোসব যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা -
ধ্বংস আর মৃত্যুর গোপন আকর্ষণে।

আমরাও সবংশে নিঃশেষ হবো বলে
প্রকৃতির সমুদয় সরল সন্তান-সন্ততি
কী নিখুঁত শিখছি মৃত্যুময় বাকশিল্পকলা, সন্মোহক রাজনীতি
ধর্ম আর কথকতার ধুম্রজালে গুপ্ত ভ্রাতৃনিধনের সুক্ষ শিল্প যতো!

তাই তোমার কাছে, তোমাদের কাছে
আমার অশেষ ঋণ।
কারণ, জানাই হতোনা কখনও, মানুষের মনে ও মননে
এতো রূপ-বৈচিত্র্য আছে!
বিগত ছয়টি যুগের হৃদয়ঘাতী ভাঙনে-হুল্লোরে আমরা সবাই
কেমন নির্দ্বিধায় বদলে গেছি, আজও নিয়ত বদলে যাই
সরল সৌম্য সবুজ একটি হৃদয় হারিয়ে,
বসন্তদিন থেকে অজান্তে খুনখেলা শিখে শিখে আজ
কী দারুণ পৌঁছে গেছি অবলীলায়
গ্রীষ্মের খরাতপ্ত দিশাহীন জীবনে
সবুজ পাহাড়ের বুকপোড়া জুমক্ষেতে:

মুক্তির ভ্রান্তিবিলাসে!

জানি, মানুষের সাথে মানুষের নিষ্ঠুর এই খেলা
একদিন থামবেই থামবে।
যুদ্ধের ময়দানে ঝাঁকে ঝাঁক উড়বে সেদিন
শান্তির অযুত কপোত-কপোতী
আর রঙিন প্রজাপতি যতো -
নতুন এক পৃথিবীর প্রশান্তির স্বর্ণালোকে
মুছে দিতে সমুদয় রক্তদাগ, হৃদয়ের যতো ক্ষতচিহ্ন-ব্যথা।

সেদিন দারুণ ঐক্য হবে তোমার আমার
এবং তোমাদের সাথে আমাদের।

কবরক ধানের সুবাসে, সদরক ফুলের লাবণ্যে মিশে
পরিপাটি জুমের তুগোনে সারিবদ্ধ দাঁড়িয়ে একসাথে
সেদিন আমরা দেখবো সবাই
নতুন, নবরূপ এক সূর্যোদয় -

আমাদের সবুজাভ-স্বর্ণাভ-সমুজ্জ্বল জুম-পাহাড়ে
নব এশিয়ার, হিমালয় চূড়ার পূর্ব দিগন্তে
কোটি মানুষের হৃদয় নিংড়ানো ভালোবাসায়, আলিঙ্গনে !!!





লেখক: Jummoblogger


0 0



You must log in to comment



মন্তব্যসমূহ(0):